রাজশাহী পলিটেকনিকে ছাত্ররাজনীতি বন্ধের সুপারিশ

0

নিজস্ব প্রতিবেদক :

রাজশাহী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে পাঁচ বছরের জন্য ছাত্ররাজনীতি বন্ধের সুপারিশ করা হয়েছে। এ বিষয়ে সব রাজনৈতিক দল ও পুলিশ প্রশাসনের সহায়তা চেয়েছে প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ।

প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষ প্রকৌশলী ফরিদ উদ্দীন আহম্মেদকে পুকুরে ফেলে দেয়ার ঘটনার তদন্ত কমিটি এই সুপারিশ করেছে। ৯ ডিসেম্বর তদন্ত কমিটির সদস্য সচিব মুস্তাফিজুর রহমান এই প্রতিবেদন দাখিল করেন। তদন্ত প্রতিবেদনের ভিত্তিতে ইনস্টিটিউটের একাডেমিক কাম প্রশাসনিক পরিষদের সভায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এই প্রতিষ্ঠানে ছাত্ররাজনীতি চলমান রেখে সুষ্ঠুভাবে একাডেমিক কার্যক্রম চালানো অসম্ভব। এজন্য আগামী পাঁচ বছর ছাত্ররাজনীতি বন্ধের সুপারিশ করা হয়। এছাড়া ছাত্রলীগের টর্চারসেল হিসেবে পরিচিত ১১১৯ নম্বর কক্ষটি ভেঙে ছাত্র কমনরুম করার সুপারিশ করা হয়েছে।

অন্যদিকে অভিযুক্ত ৪ শিক্ষার্থীকে বহিস্কার করা হয়েছে। এছাড়া অভিযুক্ত ১৬ ছাত্রের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

অধ্যক্ষ ফরিদ উদ্দিন আহম্মেদ জানান, বর্তমানে পরিবেশ শান্তিপূর্ণ রয়েছে। নিরাপত্তার জন্য পুলিশি পাহারার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ২ নভেম্বর কার্যালয় থেকে অধ্যক্ষকে ক্যাম্পাসের পুকুরের পানিতে ফেলে দেয় ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। এ নিয়ে সাতজনের নাম উল্লেখসহ ৫০ জনকে আসামি করে মামলা করেন তিনি।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মাহবুব হাসান জানান, ঘটনার মূলহোতা সৌরভসহ ১৮ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মামলাটির তদন্ত চলছে।

বিডিজার্নাল/আরডি

Share.

About Author

Comments are closed.